Thursday , March 4 2021

বিশ্বসেরা যে ৫ ক্রিকেটার কখনো টেস্ট খেলেনি

বর্তমানে সীমিত ওভারের ক্রিকেট আসার পরে টেস্ট ক্রিকেটে জনপ্রিয়তা অনেকটাই কমেছে। তবুও টেস্টকে ক্রিকেটের সেরা ফরম্যাট বলা হয়। এটা বলা বাহুল্য যে সীমিত ও টেস্ট ক্রিকেটের খেলার ধরন একেবারেই আলাদা। যে কারণে অনেকেই সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করলেও কখনো টেস্ট দলে জায়গা করতে পারেন নি। তাদের সাদা জার্সিতে প্রতিনিধিত্ব করা কেবল স্বপ্নই রয়েই গেছে। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক, সীমিত ওভারের সেই বিখ্যাত ৫ ক্রিকেটারের সম্পর্কে:-

১) লুক রাইট: (ইংল্যান্ড)-: বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান লুক রাইট ইংল্যান্ডের হয়ে ৫০ ওয়ানডে এবং ৫১টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছিলেন। এছাড়াও তিনি ইংল্যান্ডে ঘরোয়া ক্রিকেটে ১৪৪টি প্রথম-শ্রেণীর ম্যাচ খেলেছিলেন, তার পরেও তিনি কখনও ইংল্যান্ডের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে সুযোগ পাননি। টি-টোয়েন্টিতে তিনি ১৩৭ স্ট্রাইক রেট নিয়ে ৭৫৯ রান করেছেন। যার মধ্যে রয়েছে ৪টি হাফ সেঞ্চুরি। সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর ৯৯ রান।

২) ইউসুফ পাঠান: (ভারত)-: সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অন্যতম সেরা আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান ইউসুফ পাঠান। বিশেষ করে তিনি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরমেন্স করেছেন।ভারতের হয়ে তিনি ৫৭ ওয়ানডে এবং ২২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছিলেন। এছাড়াও ৯২টি প্রথম-শ্রেণীর ম্যাচ খেলেন, কিন্তু এর পরেও পাঠান কখনই টেস্ট ক্রিকেটে সুযোগ পাননি।

৩) ডেভিড মিলার: (দক্ষিণ আফ্রিকা)-: দক্ষিণ আফ্রিকার মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান ডেভিড মিলারকে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অন্যতম সেরা হিসাবে বিবেচনা করা হয়।তিনি নিজের দেশের হয়ে অনেক স্মরণীয় ইনিংস খেলেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে তিনি ১৩২ ওয়ানডে এবং ৭৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন কিন্তু কখনোই সাদা জার্সিতে খেলার সুযোগ পাননি।

৪) কায়রন পোলার্ড: (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)-: কায়রন পোলার্ডকে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এই ক্যারিবিয়ান তারকা সারা বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টি লিগ খেলেন। এদিকে তিনি তার দেশের হয়ে ১১৩ ওয়ানডে এবং ৭৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন কিন্তু কখনোই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাদা জার্সিতে নামার সুযোগ পাননি।

৫) ডেভিড হাসি: (অস্ট্রেলিয়া)-: অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার ডেভিড হাসি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করলেও কখনোই ক্যাঙ্গারু দলের হয়ে সাদা জার্সিতে নামার সুযোগ পাননি। পরিসংখ্যানের কথা বললে, তিনি তার দেশের হয়ে ৬৯ ওয়ানডে এবং ৩৯টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন।